সর্বশেষ সংবাদ

আজ পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ

আজ লাইলাতুল মেরাজ। imagesবিশ্বের মুসলিম উম্মাহর জন্য তাৎপর্যপূর্ণ এক রাত। সারা বিশ্বের মুসলমানরা এ রাতটিকে অত্যন্ত মর্যাদার সঙ্গে পালন করে থাকেন।সর্বশেষ নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর জীবনে অনেক অলৌকিক ঘটনাই ঘটেছিল। তবে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টিকারী ঘটনা হলো ‘মেরাজ’। মেরাজ ইসলামের ইতিহাসে এমনকি সমস্ত নবুওয়াতের ইতিহাসেও এক অবিস্মরণীয় ঘটনা।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও এ রাতে বিশেষ এবাদত বন্দেগী করা হয়। তন্মধ্যে কোরআনখানি, জিকির আসকার, ওয়াজ মাহফিল, দোয়া-দুরুদ পাঠ অন্যতম।

আল্লাহর নৈকট্য লাভ এবং মেরাজের তাৎপর্য প্রাত্যহিক জীবনে প্রতিপালনে বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে পবিত্র শবে মেরাজ পালন করে মুসলমানরা।

পবিত্র মেরাজ উপলক্ষে বিশেষ ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে। এছাড়াও প্রতিটি মসজিদেই থাকছে বিশেষ আলোচনা ও এবাদত বন্দেগীর ব্যবস্থা।

এদিন মুসলমানরা তাদের অতীত কৃতকর্মের জন্য মহান আল্লাহর দরবারে বিশেষভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করে। অনেকে তাদের মরহুম আত্মীয়-স্বজনের নামে দান খয়রাত করে থাকে। তাছাড়া অনেকে গরিব ও এতিমদের জন্য আয়োজন করেন বিশেষ খাবার-দাবারের।

মেরাজ শব্দটি আরবী। এর অর্থ ঊর্ধ্বারোহণ। ঊর্ধ্বলোকে পরিভ্রমণ। পারিভাষিক অর্থে নবুওয়তের একাদশ সালের ২৭ রজবের রাতে আল্লাহর নির্দেশে হযরত মুহাম্মদ (সা:) জিব্রাঈল (আ.) এর সঙ্গে বায়তুল্লাহ থেকে বায়তুল মুকাদ্দাস পর্যন্ত ‘বোরাকে’ ভ্রমণ করেন। অতঃপর সেখান থেকে অলৌকিক সিঁড়ির মাধ্যমে সাত আসমান পেরিয়ে আরশে আযীমে আল্লাহর সান্নিধ্যে গমন করে পুনরায় বায়তুল মুক্বাদ্দাস হয়ে সকালের আগেই মক্কায় নিজ গৃহে ফিরে আসেন। রাসূল (সা:)র এ ঘটনাকে ‘মেরাজ’ বলা হয়।

এ সময় তিনি অবলোকন করেন সাত আসমান, যমীন, জান্নাত আর জাহান্নাম। এ সময় আরো অনেক ঘটনাই ঘটে।

ফিরে আসার সময় নিয়ে আসেন তার উম্মতের জন্য শ্রেষ্ঠ ইবাদত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ। মূলত ওই সময় থেকেই নামাজ মুসলমানদের জন্য ফরজ করা হয়।

মিরাজ সম্পর্কে মহান আল্লাহ পবিত্র কুরআন শরীফে বলেন, ‘পরম পবিত্র ও মহিমাময় সত্তা তিনি, যিনি তাঁর স্বীয় বান্দাকে রাতের বেলায় মসজিদে হারাম থেকে মসজিদে আকসা পর্যন্ত ভ্রমণ করালেন, যার চতুর্দিকে আমার রহমত ঘিরে রেখেছেন-যেন আমি তাঁকে কুদরতের কিছু নিদর্শন দেখিয়ে দেই। তিনিই সবকিছু শোনেন ও দেখেন। (বনী ইসরাঈল-১)

Leave a Reply