সর্বশেষ সংবাদ

লঞ্চের ধাক্কায় তিন যাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন

পটুয়াখালী প্রতিনিধি: পটুয়াখালী থেকে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী দুটি লঞ্চের সংঘর্ষে তিন যাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এ সময় দুই যাত্রী নদীতে পড়ে নিখোঁজ হয়েছে বলে দাবি করেছে ঘাট শ্রমিকরা। তবে পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিএর বলছে ওই দুর্ঘটনায় কেউ নিখোঁজ হয়নি।
বুধবার বিকেল তিনটার পটুয়াখালী লঞ্চঘাটে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
আহতরা হলেন- পটুয়াখালী সদর উপজেলার কমলাপুর এলাকার আব্দুল হক মোল্লার ছেলে আব্দুর রশিদ মোল্লা, বরগুনার আমতলি উপজেলার গাজীপুর গ্রামের মজিবুর রহমান এবং পটুয়াখালী সদর উপজেলার শারিখখালী এলাকার ময়না বেগম। আহতরা সবাই ঢাকা যাবার উদ্দেশ্যে পল্টনে দাঁড়িয়ে ছিলেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দুপুরে যাত্রী নিয়ে পটুয়াখালী নদী বন্দরে নোঙর করা অবস্থায় ছিল এমভি কুয়াকাটা-১ লঞ্চটি। ওই সময় ঢাকা থেকে ফিরতি ট্রিপ নিতে আসা এমটি দীপরাজ-২ লঞ্চটিকে ঘাটে ভিড়তে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে সেটি। এতে কুয়াকাটা লঞ্চের কাছিতে (লঞ্চ বাঁধার দড়ি) ধাক্কা খেয়ে তিন যাত্রীর পা ভেঙে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আহতদের প্রাথমিকভাবে পটুয়াখালী সদর হাসপাতালে নেয়া হলেও আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের বরিশাল শেরে বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে পাঠানো হয়।
এদিকে গত কয়েকদিন ধরেই ঢাকাগামী যাত্রীবাহী লঞ্চগুলো ধারণ ক্ষমতার বেশি যাত্রী নিয়ে পটুয়াখালী নদী বন্দর ছেড়ে যাচ্ছিল। আর এসব দেখেও না দেখার ভান করে আসছে নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ।
পটুয়াখালী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল হক বরিশাল ওয়াচ কে জানান, লঞ্চঘাটে দুটি লঞ্চের ধাক্কায় তিন যাত্রীর পা ভেঙে গেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়। তবে এ ঘটনায় কেউ নিখোঁজ নেই ও মামলাও দায়ের হয়নি।

 

Leave a Reply