সর্বশেষ সংবাদ
অপ্রতিরোধ্য টাইগারদের সিরিজ জয়

অপ্রতিরোধ্য টাইগারদের সিরিজ জয়

যেন কেউ ফেরাতে পারলো না। সত্যিই তো অপ্রতিরোধ্য। অপ্রতিরোধ্য না হলে কি আর ধারাবাহিক সাফল্য আসে! হ্যাঁ, এক কথায় আমাদের টাইগাররা অপ্রতিরোধ্য হয়ে গেছে। গেলো বিশ্বকাপ থেকে তারা নিজেদের পারফরম্যান্সের উৎকর্ষতা দেখিয়ে এসেছেন। আর রোববার মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে পাকিস্তানকে নাস্তানাবুদ করে সিরিজ জয়। সাবাশ বাংলাদেশ, ক্রিকেট পৃথিবী অবাক তাকিয়ে রয়, থাকতেই হবে। পাকিস্তানের দেওয়া ২৪০ রান তাড়া করতে নেমে ৭ উইকেট থাকতে জয় নিশ্চিত করে টাইগাররা।

ক্রিকেট ইতিহাসে কি না করতে পারে আমাদের টাইগারা। এই যেমন ১৬ বছরের অপেক্ষা কাটিয়ে গতপরশু শুক্রবার পেলো পাকিস্তানের বিপক্ষে বড় ব্যবধানের জয়। এর থেকে বড় বিষয় হচ্ছে, শুধু পাকিস্তানকে হারায়নি। পুরো দুটি ম্যাচেই পাকিস্তানকে শাসন করেছে তারা। কি ব্যাটিং, কি বোলিং কিংবা ফিল্ডিং। সব ক্ষেত্রেই কি সাবলীলভাবেই খেলে যাচ্ছেন তারা।

রোববার টসে জিতে কৌশলি হতে চেয়েছিল পাকিরা। আগের ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিং করে ৩২৯ রানের লক্ষ্য বেধে দেয় টাইগাররা। মোকাবেলায় ২৫০ করতেই সব উইকেট হারাতে হয় তাদের।

তাই রোববার টসে জিতে টাইগারদের পথে চলতে চেয়েছিলো। কিন্তু সেইটি কি আর করতে দেয় টাইগাররা। দলীয় শতক হওয়ার আগে রুবেলদের দূর্দান্ত বোলিং এ সাজ ঘরে চলে যায় ৫ উইকেট। পরে কিছুটা সর্তক হয়ে চাপ সামলাতে চেয়েছে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। তবে আর উইকেট খুব বেশি হারাতে হয়নি। কিন্তু চাপের কারণে ২৩৯ রানে ৫০ ওভার শেষ হয়ে যায় পাকিদের ব্যাটিং।

জবাবে যেন ব্যাটিং হাতে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠে টাইগারা। তামিম ইকবাল আর সৌম্য সরকার ওপেনিং জুটি ভালোভাবেই শুরু করে। তবে ২২ রানের মাথায় কিছুটা ছন্দ পতন ঘটে সৌম্য সরকারের বিদায়ে। তো কি হয়েছে। তামিমকে রুখবে কে?  ব্যাট হাতে পাকিদের যেন বেসামাল করে করে তোলে তামিম ইকবাল। তাইতো অপর প্রান্তে মাহমুদুল্লাহ বিদায় নিলেও থামেননি তিনি।

রেকর্ড পার্টনারশিপের সহযোগী মুশফিককে নিয়ে করেন টানা শতক। বাংলাদেশি কোন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাহমুদুল্লাহর পর তামিম নাম লেখালো সেই খাতায়। আর তামিমদের শতকে ভর করে পাকিদের লক্ষ্য ছুতে যেন কোন তাড়াহুড়ো ছিলো না। তাইতো খুব আয়েশি ভাবেই উঠে আসে সিরিজ জয়। ৩৮ ওভার ১ বল খেলে ৩ উইকেট হারিয়ে টাইগাররা জয় পায়।

অন্যদিকে, সহযোগী মুশফিকও ধারাবাহিক সফলতা দেখালেন। গত ম্যাচে শতকের পর রোববারের ম্যাচে ৭০ বলে করেন ৬৫ রান। 

ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছেন পর পর দুই ম্যাচে শতক করা তামিম ইকবাল।

এদিকে, টাইগারদের জয় ভাগাভাগি করতে রোববার ব্যস্ততার মধ্যেও মাঠে খেলা দেখতে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি রাত ৮টার কিছু পর মাঠে যান।

বাংলাদেশের সিরিজ জয়ে উল্লাস করেছে মাঠের দর্শকরা। তারা বিভিন্ন শ্লোগানে টাইগারদের শুভেচ্ছা অভিনন্দন।

Leave a Reply