সর্বশেষ সংবাদ
শেবাচিমের ওটি’র  বেহাল দশা।।স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে নগরবাসী

শেবাচিমের ওটি’র বেহাল দশা।।স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে নগরবাসী

শেবাচিম প্রতিবেদকঃবরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারগুলোর বেহাল দশা। অপারেশন সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রপাতিগুলো অধিকাংশ সময় অকেজো থাকে। নেই পর্যাপ্ত জায়গা এবং শীততাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র। এ কারণে রোগীরা ইনফেকশনের শিকার হচ্ছেন বলে জানান চিকিৎসকরা। তবে অর্থবরাদ্দ পেলে এসব সমস্যা থাকবে না বলে মনে করেন প্রতিষ্ঠানের উপ-পরিচালক। শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা হয় ১৯৬৮ সালে। শুরুতে ৬ বিভাগ ও ১৩ ইউনিট ছিল। এখন বিভাগ ১২ এবং ইউনিটরে সংখ্যা ৪০। সময়ের সাথে বেড়েছে রোগী ও ইউনিট। শুধু বাড়েনি ওটি’র মান। বরং ওটি’র অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে বলে জানান চিকিৎসকরা। হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. এ.এম.এস.এম.সারফুজ্জামান বলেন, ‘ওটি গুলোর অবস্থা আসলেই খুব নাজুক। এ অবস্থায় আমাদের কাজ করতে খুব কষ্ট হচ্ছে।’ গাইনী বিভাগীয় প্রধান জানান, অপারেশন থিয়েটারের নানা সমস্যার কারণে রোগীরা শিকার হচ্ছে ইনফেকশনের। গাইনী ও প্রসূতি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সেলিনা পারভীন বলেন, ‘যন্ত্রপাতি বিশুদ্ধকরণের মেশিন প্রায়ই অকেজো থাকে। এধরণের পরিস্থিতিতে রোগিদের ইনফেকশন হওয়ার আশঙ্কা অনেক বেশি।’ বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। অর্থ বরাদ্দ পেলে এসব সমস্যা থাকবে না বলে জানালেন উপ-পরিচালক ডা. মো. সহিদুল ইসলাম হাওলাদার। তিনি বলেন, ‘ওটির পুরনো যন্ত্রপাতি মেরামতের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। আর নতুন ভবন পেলে অবকাঠামোগত সমস্যাও নিরসন হবে।’ বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওটি’র সংখ্যা ৮টি। প্রায় সবগুলো ওটি’তে রয়েছে কোনো না কোনো সমস্যা। প্রতিদিন দুই শতাধিক মানুষের অপারেশন হচ্ছে এই হাসপাতালে। বছরে এর সংখ্যা প্রায় ৬৩ হাজার। এ অঞ্চলের ১০-১২ জেলার মানুষের চিকিৎসা ক্ষেত্রের ভরসাস্থল এই হাসপাতাল। তাই এখানকার অপারেশন থিয়েটারগুলোর উন্নয়ন জরুরি।

Leave a Reply