সর্বশেষ সংবাদ
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উত্তাল মেঘনা পাড়ি দেওয়ার শেষ ভরসা ছোট নৌকা

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উত্তাল মেঘনা পাড়ি দেওয়ার শেষ ভরসা ছোট নৌকা

জুয়েল সাহা বিকাশ, ভোলা : ভোলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ মনপুরা যাওয়ার একমাত্র নৌপথ তজুমদ্দিন-মনপুরা সী-ট্রাক সার্ভিস বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগ ও ভোগান্তিতে পড়েছেন এ রুটে প্রতিদিন চলাচলকারী শত শত যাত্রী।

সী-ট্রাক সার্ভিস বন্ধ থাকার কারণে ঝুঁকি মাথায় নিয়েই ছোট ছোট নৌকা ও ইঞ্জিনচালিত ট্রলার দিয়ে পাড়ি দিচ্ছেন মেঘনার বিপজ্জনক জোন।

ভোলার সঙ্গে মনপুরা উপজেলার যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যমই নৌ-পথ। বর্ষার মৌসুমে সী-ট্রাক ও শুকনো মৌসুমে লঞ্চ। কিন্তু গত ৫ মাস আগে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এস.টি শহীদ শেখ জামাল নামে সী-ট্রাকটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে এস.কে ট্রেডার্স নামের কোম্পানি সী-ট্রাকের পরিবর্তে বরিশাল রুটের এফ.ভি সোনালি লঞ্চ দিয়ে যাত্রী পারাপার করত। কিন্তু ১৫ মার্চ থেকে ১৫ অক্টোবর মেঘনা নদী উত্তালের কারণে ছোট ছোট লঞ্চ চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকায় ওই লঞ্চটিও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তজুমদ্দিন-মনপুরা রুটের যাত্রী ব্যবসায়ী হাসেম আলী  বলেন, ‘নিশ্চিত দুর্ঘটনা জেনেও প্রতিদিনই এ রুট দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে ছোট ইঞ্জিনচালিত ট্রলার দিয়ে মনপুরা যেতে হয়। সোমবার কালবৈশাখী ঝড়ের কবলে একটি মালবাহী কার্গো ডুবে গেছে।’

নিয়মিত যাত্রী আরিফ হোসেন বেল্লাল জানান, চাকরির কারণে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকা ও ট্রলারে পারাপার করতে হচ্ছে। গত এক মাসে এ রুটে কয়েকটি দুর্ঘটনা ঘটলেও কর্তৃপক্ষের টনক নড়ছে না।

মনপুরার আরেক যাত্রী নীলা বেগম  বলেন, ‘আমরা সব-সময়ই সকল সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত। যখন নৌকায় উঠি তখন শুধু আল্লাহ নাম নিতে থাকি।’

এ ব্যাপারে টেন্ডার পাওয়া এস.কে ট্রেডার্সের সহকারী পরিচালক ভুট্টু মিয়া  জানান, মনপুরার মেঘনার ডেঞ্জার জোনের কথা চিন্তা করে কোম্পানি এ রুটে খুব দ্রুত একটি নতুন সী-ট্রাক চালুর কথা ভাবছে।

মনপুরা উপজলা চেয়ারম্যান সেলিনা চৌধুরী  জানান, বিষয়টি নিয়ে এলাকার সংসদ সদস্য ও বন ও পরিবেশ উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবের সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি খুব দ্রুত এ সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

Leave a Reply