সর্বশেষ সংবাদ

ডাচ-বাংলা ব্যাংকের বৃত্তির জন্য আবেদন করবেন যেভাবে

ডাচ-বাংলা ব্যাংক তার শিক্ষাবৃত্তি কর্মসূচির আওতায় দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত মেধাবী ও আর্থিকভাবে অসচ্ছল ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বৃত্তি প্রদান করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় ১১তম পর্যায়ে ২০১৫ সালে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আর্থিকভাবে অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অনলাইনে বৃত্তির জন্য দরখাস্ত আহ্বান করেছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক।

যেসকল ছাত্র-ছাত্রী সরকারি বৃত্তি ব্যতীত অন্য কোন উৎস থেকে বৃত্তি পাচ্ছেন, তারা ডাচ-বাংলা ব্যাংক ফাউন্ডেশন বৃত্তির জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন না।

গ্রামীণ ও অনগ্রসর এলাকায় অবস্থিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে উত্তীর্ণ ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বৃত্তির শতকরা ৯০ ভাগ নির্ধারিত থাকবে এবং মোট বৃত্তির শতকরা ৫০ ভাগ ছাত্রীদের প্রদান করা হবে।

২০১৫ সালে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আগ্রহী ও উপরোক্ত যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষার্থীরা অনলাইনে www.dutchbanglabank.com/DBBLScholarship এই ঠিকানায় আবেদন করতে পারবেন।

আবেদন পত্রের সাথে আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবির স্ক্যান কপি, আবেদনকারীর পিতা ও মাতার পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবির স্ক্যান কপি এবং এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার নম্বরপত্র ও প্রশংসাপত্রের স্ক্যান কপি পাঠাতে হবে। ১ জুন থেকে ৯ জুলাই পর্যন্ত বৃত্তির জন্য আবেদন করা যাবে।

বৃত্তির জন্য আবেদনের যোগ্যতা : ২০১৫ সালে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সিটি কর্পোরেশন এলাকার অন্তর্গত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে ন্যূনতম জিপিএ (৪র্থ বিষয় বাদে) ৫.০০। জেলা শহর এলাকার অন্তর্গত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে ন্যূনতম জিপিএ (৪র্থ বিষয় বাদে) ৪.৮৮। গ্রামীণ ও অনগ্রসর অঞ্চলের অন্তর্গত শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে ন্যূনতম জিপিএ ৪.৭০।

Leave a Reply