সর্বশেষ সংবাদ
ভোলায় ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আটক ২০

ভোলায় ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আটক ২০

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভোলার চরফ্যাশনের দক্ষিণ আইচা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেল ও সম্পাদক লিমন দুগ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ ও বসত বাড়িসহ ১৫ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর -লুটপাটের ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার সকাল ৯ টার থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত দক্ষিণ আইচা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে দক্ষিণ আইচা থানা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আশ্রাফ উদ্দিন সবুজসহ পাচঁজন গুরুতর আহত হয়েছে।

অপর আহতরা হলেন, আ.শহীদ, ইউছুফ, জামাল মীর, নুরনবী। আহতদের চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ থানা যুবলীগের সভাপতি আ.রশিদসহ দু’গ্রুপের ২০ জনকে আটক কররেছে। অপর আটকৃতরা হলেন, আ. মন্নান, ফিরোজ, মোহাম্মদ আলী, রিপন, সোহল, ফিরোজ, জাকির, নোয়াব, সোহাগ, সাত্তার, শাহিন, কবির, হারুন, কাশেম, সুমন, কাশেম, তুহিন, সোহেল, আমির হোসেন।

স্থানীয়রা জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার সময় দক্ষিণ আইচা বাজারে থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লিমন গ্রুপ সভাপতি রাসেল গ্রুপের দু’কর্মীর মধ্যে মারামারির ঘটনা নিয়ে দু’গ্রপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ঘটে এবং রাসেলের চাচা যুবলীগ সভাপতি আ.রশিদের বাড়ি ঘরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়।

এতে ক্ষুব্দ হয়ে শুক্রবার সকাল ৯ টার দিকে রাসেলের চাচা যুবলীগ সভাপতি আ.রশিদের নেতৃত্বে লিমনের ভাই যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আশ্রাফ উদ্দিন সবুজকে কুপিয়ে আহত করে। এরপর লিমন গ্রুপ রশিদের ভাই শহিদকে কুপিয়ে আহত করে, পরে রাসেল গ্রুপ লিমন গ্রুপের ইউছুফ ও জামাল মীরকে কুপিয়ে আহত করে। এ নিয়ে দ’ুগ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় একটা বসত ঘরসহ বাজারের ১৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ভাংচুর লুটপাটের হয়।

খবর পেয়ে দক্ষিণ আইচা ও শশীভূষণ থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেন এবং ঘটনাস্থল থেকে ২০ জনকে আটক করেন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে দক্ষিণ আইচা বাজারে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে দক্ষিণ আইচা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেল’র সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে তার ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেয়া যায়নি। দক্ষিণ আইচা থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লিমনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কিছুদিন আগে রাসেল ও তার চাচাতো ভাই দুলাল চাঁদার টাকা ভাগাভাগি নিয়ে ঝগড়া হয়ে আলাদা হয়ে যায়। বৃহস্পতিবার দুজনের সমর্থক ছাত্রলীগ আলামিন ও কর্মী গিয়াসের মধ্যে মারামারি হয় এঘটনায় ফয়সালা দিতে বসলে দুলাল আমার গায়ে জগ ছুরে মারে এনিয়ে তার সাথে বাকবিতান্ডা হয়। সকালে আমার ভাই যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আশ্রাফ উদ্দিন সবুজ বাজারে এলে যুবলীগ সভাপতি রশিদের নেতৃত্বে কুপিয়ে জখম করে এবং তাদের বাড়ির পার্শ্বে আমাদের একটি ঘরসহ বাজারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট করে। দক্ষিণ আইচা থানার মানিকা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিউল¬াহ হাওলাদার জানান, শুক্রবার সকালে দলীয় কার্যালয়ে বসে বিষয়টি মিমাংসার করা কালীন যুবলীগের সভাপতি আ. রশিদ ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে চলে গিয়ে হামলা চালায়। দক্ষিণ আইচা থানার সাব ইন্সপেক্টর এস আই তারিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

Leave a Reply