সর্বশেষ সংবাদ
আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা করে বিপাকে নিহত শারমিনের পরিবার

আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা করে বিপাকে নিহত শারমিনের পরিবার

কলাপাড়া প্রতিনিধি ॥ আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা করে আরেক দফা বিপাকে পড়েছেন নিহত শারমিনের বাবা মজিবর রহমান ও মা হিরু বেগম। আসামি প্রতারক যৌতুক লোভী প্রেমিক জাকারিয়া ও তার বাবা ক্বারী মোঃ রুহুল আমিনসহ জাকরিয়ার ভাই মোঃ এনায়েত এখন মামলা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি দিয়ে আসছে। কোন উপায় না পেয়ে অসহায় এ পরিবারের সদস্যরা বৃহস্পতিবার দুপুরে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়েছে, দুই বছর প্রেম করার পরে বিয়ের প্রস্তাব দেয়ায় দুই লাখ টাকা যৌতুক এবং পাঁচ ভরি স্বর্ণলঙ্কার দাবি করল প্রেমিক জাকারিয়া ও তার পরিবার। কিন্তু এ দাবি পুরন করতে না পারায় বিয়েতে অস্বীকার করলে শারমিন কোন উপায় না পেয়ে প্রেমের স্বীকৃতি না মেলায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। এ বছর এসএসসি উত্তীর্ণ হয় শিক্ষার্থী শারমিন। রোববার, (৭ জুন) সকাল সাতটার দিকে মর্মান্তিক আত্মহননের ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ শারমিনের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত করেছে। এঘটনায় প্রেমিক জাকারিয়া, তার বাবা ক্বারী রুহুল আমিন, ভাই মোঃ এনায়েতের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা করা হয়েছে। আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে মামলায়। জানা গেছে, জাকারিয়া ও শারমিন উভয় এবছর তারিকাটা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি উত্তীর্ণ হয়। দু’বছর ধরে তারা দুজনকে ভালবেসে আসছিল। শারমিনের পরিবার কয়েকদিন আগে জাকারিয়ার বাবা-মায়ের কাছে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। তা প্রত্যাখ্যান করে। দেন-দরবার করলে মোটা অঙ্কের যৌতুক দাবি করা হয়। এনিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় শারমিন সরাসরি প্রেমিক জাকারিয়ার সঙ্গে কথা বলে। জাকারিয়াও সরাসরি জানিয়ে দেয় টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার পেলে বিয়ে করবে। নইলে নয়। এতে প্রচন্ডভাবে মানসিক আঘাত পায় শারমিন। শারমিন এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৪.৯২ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়।

Leave a Reply