সর্বশেষ সংবাদ
বিসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনঃঈদে পাবে এক মাস॥বকেয়া থাকবে ৩ মাস !

বিসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনঃঈদে পাবে এক মাস॥বকেয়া থাকবে ৩ মাস !

হেলাল উদ্দিন :মেয়র কামাল নগর আসনে বসার পর নগরবাসীকে যেমন নানা উন্নয়ন ও আশ্বাসের বানী শুনিয়েছিলেন তেমনি শুনিয়েছিলেন ঐ প্রতিষ্ঠানে থাকা কর্মরতদের। নগরবাসীর জন্য আশ্বাসের ফুলজুড়ি থাকলেও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য তার ছিলো একটি ওয়াদা । আর সেটা বেতন নামক শব্দটির সামনে পেছন থেকে বকেয়া নামক শব্দটি সরানো। অর্থাৎ সময়মত বেতন দেবেন তিনি। কিন্তু সেটা সম্ভব হয়নি তার পক্ষে। বরং তার আগের মেয়রের ধারবাহিকতাও রক্ষা করতে পারেননি। দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে বেতন বকেয়া নামক শব্দটির সাথে কখনো যুক্ত হয়েছে ৩ মাস কখনো আবার ৬ মাস। সর্বশেষ জুন মাসে ২০১৪ সালের ডিসেম্বর ও চলতি বছরের জানুয়ারী ও ফেব্র“য়ারী মাসের বেতন ভাতা প্রদান করে বিসিসি। এখন চলছে বছরের ৭ নম্বর মাস। অর্থাৎ বকেয়া রয়েছে ৪ মাসের বেতন। তবে এটা শুধু স্থায়ীভাবে কর্মরতদের । এদের চেয়ে একটু ভাগ্যবান চুক্তিভিত্তিক শ্রমিকরা। তাদের বেতন বকেয়া মাত্র ১ মাসের। বেতন প্রদানের এ চিত্রে যে কেউ অনুমান করতে পারবে কতটা শান্তিতে আছে বিসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। পবিত্র এ মাসে যেমন বাড়তি সওয়াব অর্জন করা যায় তেমনি প্রয়োজন হয় স্বাভাবিক মাসের চেয়ে বাড়তি খরচের। বাড়তি এ খরচের মাসে পকেটে টাকা নেই বিসিসির সহস্রাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। তবে সমান্য সুখবর আছে তাদের জন্য । প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জানালেন গতকাল তিনি ১ মাসের বেতন ও ঈদ বোনাসে স্বাক্ষর করেছেন। খুব তাড়াতাড়ি বেতন বোনাস পাবেন তারা। তিনি আরো বলেন, ঈদের আগে যদি সম্ভব হয় আরো বকেয়া পরিশোধের চেষ্টা করা হবে। জানা গেছে, বিসিসিতে প্রায় সাড়ে ৫শ স্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং প্রায় ১৪শ’ দৈনিক মজুরী ভিত্তিতে কাজ করা শ্রমিক রয়েছে। বিসিসির কয়েকজন কর্মকর্তা বলেন বেতন না পাওয়ায় রোজায় চরম কষ্টে রয়েছেন তারা। বড় বড় পদে চাকুরী করেও রোজার বাজার ওঠেনি তাদের বাসায়। অন্যদিকে অস্থায়ী ভিত্তিতে দৈনিক মজুরীতে চাকুরী করা কয়েকজন শ্রমিক জানিয়েছে, রোজা ঈদ নিয়ে তারা ভাবছেন না, তিন বেলা খেয়ে পরে থাকার মধ্যেই দৃষ্টি তাদের। জানতে চাইলে বিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার বলেন, আমরা চুক্তিভিত্তিক কর্মচারীদের বেতন প্রায় কভার করে ফেলেছি। স্থায়ীদের নিয়েও চেষ্টা করছি যথাসাধ্য।

Leave a Reply