সর্বশেষ সংবাদ
মায়ের অপকর্ম দেখে ফেলায় অপরাধী আরাফাত!

মায়ের অপকর্ম দেখে ফেলায় অপরাধী আরাফাত!

পিতার অর্বতমানে চাচার সাথে মায়ের সখ্যতা অতঃপর পর্যায়ক্রমে তা রুপ নেয় পরকীয়ায়। ঘটনার প্রেক্ষিতে তারা জড়িয়ে পরে শারীরীক সর্ম্পকে। তাদের মধ্যকার এ মেলামেশা নিয়ে প্রথমাবস্থায় বিব্রত ছিল দশ বছরের পুত্র আরাফাত। তা নিয়ে মুখ খুললে বেকে বসেন তার মা। শ্রেফ একজন শত্রুর মত পুত্রের বিরুদ্ধে ঢুকে দেন মামলা। থানায় নয় একেবারে আদালতে। আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা প্রদানও করে।  জানা গেছে, বরিশাল নগরীর কাউনিয়া থানার বাটনা গ্রামে এ পৈশাচিক ঘটনা ঘটে।  আরাফাত বাটনা গ্রামের স্থানীয় ধুমচর দাখিল মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। তার পিতা আনোয়ার হোসেন বিদেশে থাকে। সেই সুবাদে আরাফাতের মা মনোয়ারা আক্তার তার চাচাসহ বেশ কয়েকজনের সাথে দৈহিক সর্ম্পকে জড়িয়ে পরে। এ নিয়ে কথা বললে প্রায়ই আরাফাতকে মারধর করত তার মা মনোয়ারা আক্তার।

সেই পরাকিয়া ঘটনায় যের ধরে অসহায় শিশুটিকি শারীরিকভাবে নির্যাতন করায় অন্যান্যদের কাছে নালিশ করলে ক্ষুব্ধ হয়ে থানায় মামলা প্রদান করে মনোয়ারা। যার মামলা নং সিআর ২৪৫/১৫। শিশু আরাফাতের বিরুদ্ধে  চুরি, চুরিতে সহযোগীতা ও মারধরে সহযোগীতা করার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলাটি বরিশাল মেট্রোপলিটন মেজিষ্ট্রেট (২য় ) নুসরাত জাহান এর আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা কাউনিয়া থানার এসআই আমিনুল ইসলাম  জানান,  আদালতে মায়ের মামলার প্রেক্ষিতে আদালত থেকে গ্রেফতারী পরোয়ানা প্রদান করা হলে আমরা অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে আদালতে সোর্পদ করা করি। উল্লেখ থাকে যে,সর্বশেষ এক রাত থানা পুলিশের জিম্মায় থাকার পর আদালতে সোর্পেদ করা হলে এ্যাভোকেট টিপু সুলতান জামিন আবেদন করে মানবিক বিবেচনায় নিজ জিম্মায় নেন।

 

Leave a Reply