সর্বশেষ সংবাদ

কলাপাড়ায় গ্রামবাসীর উদ্যোগে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বেড়িবাঁধ সংস্কার

কলাপাড়া প্রতিনিধি কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উমেদপুর গ্রামের ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে প্রচন্ড জলোচ্ছ¡াসের প্রভাবে বিধক্ষস্ত বেড়িবাঁধসহ ¯øুইস গেইট সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে গ্রামবাসী। গত তিন ধরে প্রায় এক’শ জন গ্রামবাসী স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধ সংস্কারের কাজ শুক্রবার বিকেলে শেষে করে। এতে ওই গ্রামের মানুষে মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। এলাকাবসীরা জানান, গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতের প্রভাবে তীব্র জলোচ্ছ¡াসে কলাপাড়ার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উমেদপুর গ্রামের ৪৬ নং পেল্ডারে প্রায় ৭০ ফুট বেড়িবাঁধসহ ¯øুইস গেইট ভেঙ্গে গ্রামে লবন পানি প্রবেশ করে কয়েকশ একর জমিসহ বিভিন্ন পুকুর ও বাড়ি ঘর পানিতে ডুবে যায়। স্থানীয় এলাকাবাসী বিষয়টি বিভিন্ন উচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ করেও কোন সুফল না পাওয়ায় চরমদুর্ভোগে পরে। লবন পানি গ্রামে ঢুকে যাওয়ার ফলে বিভিন্ন কৃষি জমি সহ পুকুরের মাছের প্রচুর ক্ষতি হয়। ভিতরে মাটির রাস্তাগুলো পানিতে তলিয়ে গিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরো বেহাল হয়ে পড়ে। এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য গ্রামবাসী স্থানীয় ০৮ নং ওয়ার্ডের ওয়ার্ল্ড কনসার্ন বাংলাদেশ-এর ওয়ার্ড দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. আলমগীর হোসেন ও ইউপি সদস্য হেমায়েত উদ্দিন উকিল গ্রামবাসীদের নিয়ে আলোচনা করে সবাই মিলে সন্মিলিত ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়, নিজেরাই নিজেদের বেড়িবাঁধ সংস্কারে করবে। গত ১ মে জুন শতাধিক গ্রামবাসী স্বেচ্ছা শ্রমের ভিত্তিতে বেড়িবাঁধ সংস্কারের কাজে শুরু করে। তিন দিন অক্লান্ত পরিশ্রমের করে বেড়িবাঁধ ও ¯øুইস গেইট মাটি দিয়ে বন্ধ করে লবণ পানি প্রবেশ প্রতিরোধ করে আশংকামুক্ত হয়। এব্যাপারে ওয়ার্ল্ড কনসার্ন বাংলাদেশের কলাপাড়া উপজেলার সমন্বয়কারী জেমস রাজীব বিশ^াস সরেজমিনে বিষয়টি পরিদর্শন করেন ও এই মহৎ কাজের জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অড্যাভোকেট নাসির মাহমুদ বলেন, নিজেদের জান-মাল রক্ষায় নিজেরা এগিয়ে আসায় সকলকে তিনি ধন্যবাদ জানান। এর ফলে লবন পানি প্রবেশ বন্ধ হবে। এমন মহৎ কাজে সকলে অংশগ্রহন করলে ইউনিয়নে অনেক সমস্যা দুর করা সম্ভব।
কলাপাড়ায় গ্রামবাসীর উদ্যোগে

Leave a Reply