সর্বশেষ সংবাদ

চাঁদার দাবীতে হত্যার হুমকি ॥ কে এই শহিদ ?

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল থেকে প্রকাশিত দৈনিক দেশ জনপদ পত্রিকার সম্পাদক মির্জা রিমনকে চাঁদার দাবীতে হত্যার হুমকি দিয়েছে নবগ্রাম রোডের শীর্ষ সন্ত্রাসী শহিদ। শহিদ ওই এলাকার আব্দুস সত্তারের ছেলে। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে টায় নগরীর চৌ-মাথা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বরিশাল জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসের সামনে বসে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে শহিদ। চাঁদার টাকা দিতে অপারগত জানালে হত্যার হুমকি দেয় শহিদ। গতকাল পুনরায় চাঁদার টাকা চাইলে তাকে লাঞ্চিত করে শহিদ এবং চাঁদার টাকা না দিলে খুন, জগম ও গুম করে ফেলার হুমকি দেয় তাকে। সূত্র মতে, ২টি হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী শহিদ। দলিল লেখক সমিতির সভাপতি হাবিবুর রহমান খোকনের ভাই ও মাদক ব্যবসায়ী রয়েলের চাচাতো ভাই শহিদ। আর এই সুযোগে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে দলিল করতে আসা লোকজনদের কাছ থেকে চাঁদা তোলেন শহিদ ওরফে চাঁদাবাজ শহিদ। এছাড়া নগরীর চৌ-মাথা অটো স্টান্ড থেকে হাজার হাজার টাকা চাঁদাবাজি করে শহিদ। অপর একটি সূত্র বলছে, দলিল লেখকদের দালালি ও সাধারন সেবা প্রার্থীদের ভয়ভীতি দিয়ে চাঁদাবাজি করে। সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজি, ছিনতাই, অপহরন, দালালি, মাদক ব্যবসাসহ একাধিক কর্মকান্ডের হোতা এই শহিদ। ভাইয়ের জোরে কাপছে শহিদ এমন কথা জানালেন এলাকাবাসী। স্থানীয়রা জানান, শহিদ এলাকার মেয়েদের দিকেও কুনজরে তাকায়। এদিকে শহিদ বিভিন্ন অসামাজিক কর্মকান্ড ছাড়াও ২টি হত্যা মামলার প্রধান আসামী বলে জানা গেছে। আর এই মামলার কারনে র‌্যাবের তালিকাভুক্ত শহিদ। র‌্যাবের হাত থেকে বাচঁতে বরিশাল ছেড়ে ঢাকায় পাড়ি জমায় জহিদ। সেখানেও শুরু হয় তার ধান্ধাবাজি। ২/৩ জন বিশ্বস্ত লোকের অর্থ আত্মসাধ করে পালিয়ে বরিশালে আসে শহিদ। সম্প্রতি চাঁদাবাজির দায়ে একজনকে হত্যার হুমকি দেয়ায় তার বিরুদ্ধে একটি নন জিয়ার মামলা দায়ের করা হয়। চাঁদাবাজিতে মাস্টার ম্যান হিসেবে খ্যাত শহিদ, মাদক ব্যবসায়ও পাক্কা প্লেয়ার। আইন শৃঙ্খলা বাহীনির চোখে ধুলা দিয়ে রমারম মাদক ব্যবসা পরিচালিত করে আসছে শহিদ। ইয়াবা ব্যবসায় নগরীর অন্যান্য মাদক ব্যবসায়ীদের চেয়ে কোনো অংশে কম না তিনি। সূত্র বলছে, চৌ-মাথা বাজার থেকে রায়পাশা-কড়াপুর এলাকার ৩০/৪০টি মাদক স্পট থাকে তার নিয়ন্ত্রনে। চাঁদাবাজ শহিদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিস্তারিত আসছে আগামী পর্বে। এদিকে এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply