সর্বশেষ সংবাদ
আগ্নেয়াস্ত্র গোলাবারুদসহ ১২ জলদস্যুর আত্মসর্মাপন

আগ্নেয়াস্ত্র গোলাবারুদসহ ১২ জলদস্যুর আত্মসর্মাপন

বিলাস দাস॥স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের কাছে সুন্দর বনের নোয়া বাহিনীর প্রধানসহ মোঃ বাকি বিল্লাহসহ ১২ জল্যদস্যুরা আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আত্মসমার্পন করেছেন। শনিবার দুপুর ১টার দিকে কুয়াকাটার রাখাইন মার্কেট মাঠে আনুষ্ঠিক ভাবে এ আত্মসর্মাপনের আয়োজন করেছেন র‌্যাব-৮। এসময় র‌্যাবের মহাপরিচালক মোঃ বেনজীর আহমেদ এবং র‌্যাব ৮ এর অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ আনোয়ার উজ জামানসহ আইন শৃংখ্যলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আত্মসমার্পনকারী জলদস্যু বাহিনীর সদস্যরা হলেন নোয়া বাহিনীর প্রধান মোঃ বাকি বিল্লাহ মিয়া (৩৭),পিতাঃ ছাত্তার মোল্লা, মোঃ মনিরুল শেখ(৩৮) পিতাঃ আলী আকবর শেখ, মোঃ মানজুর মোল্লা ওরফে রাঙ্গা(৪২) পিতাঃ মোঃ আব্দুল কাদের মৌলভী, মোঃ মুক্ত শেখ(৩৭), পিতা মৃতঃ আসরাফ শেখ, মোঃ তরিকুল শেখ (৬০) পিতা মৃত মজিদ শেখ, মোঃ আকবর শেখ(৪২) পিতা আব্দুল মালেক শেখ, মোঃ কিবরিয়া মোড়ল(৪০) পিতা মৃত আরমান হোসেন মোড়ল, মোঃ জাহাঙ্গীর শেখ ওরফে মেজ ভাই(৪৮) পিতা আবু জাফর শেখ, মোঃ আল আমিন সিকদার (৫০) পিতা মোঃ আব্দুল মজিদ সিকদার, মোঃ ইউনুচ শেখ ওরফে দুলাল ঠাকুর(৪০) পিতা মৃত আকতার শেখ, মোঃ মিলাদুল মোল্লা ওরফে কালু ডাকাত(২৮) পিতা মোঃ সালাম মোল্লা, মোঃ মোশারফ হোসেন(৩৭) পিতা মোঃ আকরাম শেখ। এদের বাড়ী বাগের হাট জেলার মংলা ও রাম পালের বিভিন্ন এলাকায়।

র‌্যাব ৮ বরিশাল ক্যাম্পের অধিনায়ক মোঃ আনোয়ার উজ জামানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোঃ আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের কাছে জলদস্যুদের কাছ থেকে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আত্মসর্মাপন করেন। এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামন খাঁন কামাল বলেছেন, বঙ্গোপসাগরসহ সাগর উপকুলীয় এলাকা জলদস্যু মুক্ত করতে হবে। জেলেদের জানমাল নিরাপত্তার দিতে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। তার ধারাবাহিকতায় সাম্প্রতিকালিন সময়ে একাধিক জলদস্যু বাহিনীরা আত্মসর্মাপন করেছেন। পাশাপাশি জলদস্যুদের সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে সরকার তথা প্রথানমন্ত্রীর বিশেষ ভুমিকা রয়েছে। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবে মহাপরিচালক মোঃ বেনজীর আহমেদ, বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি মোঃ মারুফ হাসান, পটুয়াখালী জেলা প্রশাসক একেএম শামীমুল হক সিদ্দিকী প্রমুখ। এছাড়াও এসময় স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা ও আইন শৃংখ্যলা বাহিনীর সদস্যরা এবং স্থানীয় মৎস্য ব্যবসায়ীরাসহ নানা শ্রেনীর শত শত মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

আত্মসমার্পনকালে জলদস্যু বাহিনীরা র‌্যাবের কাছে ৭টি বিদেশি একনালা বন্দুক, ৮টি বিদেশি দোনালা বন্দুক, ২টি (২২ বোর) বিদেশি এয়ার রাইফেল, ৩টি ওয়ান শুটার গান ১টি তিন টন রাইফেলও ১টি বিদেশি (২২) বিদেশি রাইফেল এবং ৩টি বিদেশী কাটা বন্দুকসহ ২৫টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১১শ ৫ রাউন্ড সক্রিয় গোলাবারুদ জমা দিয়েছে।

এসময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজাজামান খাঁন কামাল জলদস্যু বাহিনীর প্রতিটি পরিবারকে নগদ বিশ হাজার টাকা অনুদান এবং শীত বস্ত্র প্রদান করেন।

র‌্যাবের একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়,গত বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবার বরিশাল র‌্যাব ৮ একটি বিপুল গোয়েন্দা দল সুন্দরবন এর চাদপাই রেঞ্জের অর্ন্তগত পশুরা নদীতে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানের দ্বিতীয় দিন সুন্দরবন এলাকার পুটখালী খালের ভিতরে জলদস্যু বাহিনীরা অবস্থান করেন এবং র‌্যাবের কাছে আত্মসর্মাপন করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। এর প্রেক্ষিতে র‌্যাব ৮ জলদস্যু নোয়া বাহিনীর আত্মসর্মাপন করা আনুষ্ঠানিক ব্যবস্থার আয়োজন করেন।

Leave a Reply