» ঝালকাঠির দুটি আসনে আ. লীগের আট প্রার্থী কিনেছেন মনোনয়ন ফরম

Published: ১১. নভে. ২০১৮ | রবিবার

অনলাইন ডেস্কএকাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ঝালকাঠির দুটি আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন বর্তমান শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুসহ আট প্রার্থী। এর মধ্যে ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঁঠালিয়া) আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য বজুলল হক হারুনসহ পাঁচজন ধানমন্ডি দলীয় সভানেত্রীর কার্যালয় থেকে মনোননয়নপত্র কিনেছেন। আর ঝালকাঠি-২ (সদর ও নলছিটি) আসনে বর্তমান শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুসহ তিনজন মনোনয়নপত্র নেন।

জানা যায়, তফসিল ঘোষণার পর থেকে ঝালকাঠিতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন স্থানে উৎসবমূখর পরিবেশে আনন্দ মিছিল বের করে। তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে নৌকা প্রতীকের পক্ষে বিভিন্ন স্লোগান দেয় তারা। ঝালকাঠি-১ আসনে আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুন (বি এইচ হারুন) দলীয় সভানেত্রীর কার্যালয় থেকে শুক্রবার সকালে মনোনয়নপত্র কিনেছেন। একই দিন দুপুরে মনোনয়নপত্র ক্রয় করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সাবেক সহসম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান মনির, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সির চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইসমাইল ও কেন্দ্রীয় যুব মহিলালীগ নেত্রী কেশোয়ারা সুলতানা।

এদিকে ঝালকাঠি-২ আসনে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হিসেবে এতোদিন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর নাম শোনা গেলেও তফসিল ঘোষণার পর আরো দুজন মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। তাদের মধ্যে একজন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক মিল্লাত হোসেন, অপরজন হচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র আফজাল হোসেন রানা। তারা দুজনেই শুক্রবার বিকেলে কয়েকজন নেতাকর্মী নিয়ে দলীয় সভানেত্রীর কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র ক্রয় করেন। একই দিন বিকেলে এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির।

ঝালকাঠি-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারী কেন্দ্রীয় নেতা মো. মনিরুজ্জামান মনির বলেন, জনগণ আমাকে ভালবাসে, তাই দলীয় মনোনয়নপত্র কিনেছি। আমার সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীরা ছিলেন। আশাকরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকেই মনোনয়ন দিবেন। কারণ বর্তমান সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুণ এলাকায় দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেননি। তার বিরুদ্ধে দলীয় নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমাকে মনোনয়ন কেনার জন্য অনুরোধ করেছে।

ঝালকাঠি-২ আসনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আফজাল হোসেন রানা বলেন, আমি দলীয় পৌরসভার মেয়র ছিলাম। জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে। আমাকে স্থানীয় নেতাকর্মীরা সংসদ নির্বাচনের জন্য দলীয় মনোনয়নপত্র কিনতে বলেছেন, তাই আমি একজন প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কিনলাম। আশাকরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকেই চূড়ান্ত প্রার্থী করবেন।

ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির বলেন, আমির হোসেন আমু নিজেই একজন দলের নীতি নির্ধারক। এখানে তার মনোনয়নের বিষয়টি আগে থেকেই চূড়ান্ত।